Apps

Picture

মানিকগঞ্জ জেলা পুলিশের ইতিহাস

Picture

জেলা পুলিশের ইতিহাসঃ
    

   দূর দিগন্তে দৃষ্টির সীমানায় আকাশের নীলিমার সখ্যতা নিয়ে গাজীখালী, ধলেশ^রী, কালীগঙ্গার তীরে গড়ে ওঠা বন্দর মানিকগঞ্জ। ধলেশ্বরীর রুপালী বেলাভূমিতে ভোরের আকাশের উদীয়মান সূর্যের শাশ্বত রূপ হয় মোহনীয় ও নৈসর্গিক; যে দৃশ্যে মন হারিয়ে যায় প্রকৃতির সাথে।

      বিশ শতকের দ্বিতীয় দশকের পরবর্তী সময়ে ব্রিটিশ সরকার প্রশাসনিক প্রয়োজনেই তৎকালীন বৃহৎ মানিকগঞ্জ ও শিয়ালো রাজস্ব থানা ভেঙ্গে অতিরিক্ত ০৪ (চার)টি নতুন থানার সৃষ্টি করে। বর্তমানে ১).মানিকগঞ্জ, ২).সাটুরিয়া, ৩).সিংগাইর, ৪).শিবালয়, ৫).ঘিওর, ৬).দৌলতপুর এবং ৭).হরিরামপুর নামে মোট ০৭ (সাত) টি থানায় উন্নীত হয়। ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে ১৬ডিসেম্বর এ দেশ স্বাধীনতা লাভ করে বাংলাদেশ পুলিশে ট্রাডিশনাল চরিত্রে বিরাট পরিবর্তন এনে দিয়েছে। ১৯৮৪ সালে দেশের প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাসের ক্ষেত্রে সকল মহকুমাকে জেলায় এবং থানাগুলোকে উপজেলায় উন্নীত করা হয়। ১৯৮৪ সালের ১মার্চ থেকে মানিকগঞ্জ বাংলাদেশের জেলা হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করে।

          এই জেলার উত্তর সীমান্তে টাঙ্গাইল জেলা, পশ্চিম, পশ্চিম দক্ষিণ এবং দক্ষিণ সীমান্তে যথাক্রমে যমুনা এবং পদ্মা নদী পাবনা জেলা ও ফরিদপুর জেলা থেকে বিচ্ছিন্ন করেছে। পূর্ব, উত্তর পূর্ব এবং পূর্ব দক্ষিণে রয়েছে ঢাকা জেলার যথাক্রমে ধামরাই, সাভার, কেরানীগঞ্জ, দোহার এবং নবাবগঞ্জ উপজেলা। 
তৎকালীন জনাব মোঃ মুজিবুল হক প্রথম পুলিশ সুপার হিসেবে মানিকগঞ্জ জেলায় দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। ০৭ (সাত) টি থানা নিয়ে সর্বপ্রথমে মানিকগঞ্জ জেলা পুলিশের পথচলা। 

           বর্তমানে  এই জেলায় পুলিশ বিভাগের-

০৩ (তিনটি) সার্কেল
সদর সার্কেল শিবালয় সার্কেল সিংগাইর সার্কেল

 

০৭ (সাতটি) থানা
মানিকগঞ্জ থানা সিংগাইর থানা হরিরামপুর থানা শিবালয় থানা ঘিওর থানা দৌলতপুর থানা সাটুরিয়া থানা

 

০৩ (তিনটি) তদন্ত কেন্দ্র
বানিয়াজুরী তদন্ত কেন্দ্র শান্তিপুর তদন্দকেন্দ্র নোটাখোলা তদন্তকেন্দ্র

এবং ০১ (একটি) সদর পুলিশ ফাঁড়ি আছে।

মানিকগঞ্জ জেলার আয়তন ১৩৭৮.৯৯ বর্গ কিলোমিটার, জনসংখ্যা ১২,৭৮,৮২৯ জন এবং জনবসতির ঘনত্ব ৮৩৫ প্রতি বর্গ কিলোমিটার। মানিকগঞ্জ জেলার আইন-শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণসহ জনগণের শান্তি শৃঙ্খলা নিশ্চিতকল্পে নিরলস পরিশ্রমের মধ্য দিয়েই জেলা পুলিশের বর্তমান পথচলা। শুধু আইন প্রয়োগ আর অপরাধ প্রতিরোধই নয় জেলা পুলিশের সদস্যরা বাংলাদেশ পুলিশের উদ্ভাবনী ক্ষমতা আর পেশাদারিত্ব দিয়ে দেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতির ধারা অব্যাহত রেখে পুলিশিং সেবা দিয়ে যাচ্ছে।

ইউনিট প্রধানদের তালিকা ও কার্যকাল-

ইউনিট প্রধানদের তালিকা ও কার্যকাল
১. জনাব মোঃ মুজিবুল হক ০১/০৩/১৯৮৪ ২৮/০৫/১৯৮৫
২. জনাব মোঃ আব্দুল রহিম ২৮/০৫/১৯৮৫ ২২/০৭/১৯৮৬
৩. জনাব পি, আর, বড়ুয়া ২৩/০৭/১৯৮৬ ২২/০২/১৯৮৮
৪. জনাব মোঃ আমিনুল ইসলাম ২২/০২/১৯৮৮ ২২/০২/১৯৯০
৫. জনাব কংসধর তরফদার ২৬/০২/১৯৯০ ১০/১১/১৯৯২
৬. জনাব হাসান ফরিদ আহমেদ ১০/১১/১৯৯২ ২০/০১/১৯৯৪
৭. জনাব আবু মুসা মোঃ ফঃ ইসলাম খান ২০/০১/১৯৯৪ ০৯/০৩/১৯৯৪
৮. জনাব সৈয়দ আজিজুল ইসলাম ০৯/০৩/১৯৯৪ ০৯/১১/১৯৯৫
৯. জনাব শাহ মোঃ খোরশেদ আলম ০৯/১১/১৯৯৫ ০৫/০২/১৯৯৭
১০. জনাব এন, কে, চন্দ ০৫/০২/১৯৯৭ ১১/১২/১৯৯৮
১১. জনাব মোঃ হেলাল উদ্দিন বদরী ১১/১২/১৯৯৮ ২২/০৯/১৯৯৯
১২. জনাব মোঃ আলতাফ হোসেন মোল্লা ২২/০৯/১৯৯৯ ১৩/০৭/২০০১
১৩. জনাব এম জামাল উদ্দিন আল আজাদ পিপিএম ১৩/০৭/২০০১ ০৭/০৮/২০০১
১৪. জনাব মোঃ আমজাদ হোসেন ০৮/০৮/২০০১ ০৪/১২/২০০১
১৫. জনাব মোঃ মোশারফ হোসেন ভূঁঞা পিপিএম ১৯/১২/২০০১ ১৬/০৯/২০০৪
১৬. জনাব মোঃ আওরংজেব মাহবুব পিপিএম ২৫/০৯/২০০৪ ১৯/০১/২০০৫
১৭. জনাব মোঃ আবুবকর সিদ্দিক মজুমদার ১৯/০১/২০০৫ ২৬/০৬/২০০৬
১৮. জনাব মোঃ শহীদুল হক ভূঁইয়া ২৬/০৬/২০০৬ ২৬/১১/২০০৬
১৯. জনাব মোহাঃ ফজলুর রহমান ২৬/১১/২০০৬ ১৮/০২/২০০৭
২০. জনাব মোঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন ১৮/০২/২০০৭ ১৪/০৬/২০০৭
২১. জনাব ইমতিয়াজ আহমেদ ১৪/০৬/২০০৭ ১০/০৩/২০০৮
২২. জনাব শেখ মুহম্মদ মারুফ হাসান ১২/০৩/২০০৮ ১৭/০৬/২০১০
২৩. জনাব মেঃ মাসুদ করিম ১৭/০৬/২০১০ ০৯/০৫/২০১১
২৪. জনাব মোহাম্মদ আলী মিয়া ০৯/০৫/২০১১ ৩০/০৪/২০১৩
২৫. জনাব বিধান ত্রিপুরা পিপিএম ৩০/০৪/২০১৩ ২৫/২৫/২০১৫
২৬. জনাব মাহ্ফুজুর রহমান বিপিএম ২৫/২৫/২০১৫ ১৬/০৩/২০১৮
২৭. জনাব রিফাত রহমান শামীম পিপিএম ১৬/০৩/২০১৮  
       

প্রতিষ্ঠা থেকে অদ্যাবধি উল্লেখ্যযোগ্য ঘটনাবলীঃ প্রতিষ্ঠা থেকে অদ্যাবধি তেমন ‍গুরত্বপূর্ণ উল্লেখ্যযোগ্য ঘটনা নাই।

ইউনিটের বিশেষ কৃতিত্বঃ 
ক).মানিকগঞ্জ জেলায় ৪৮টি পয়েন্টে মোট ১২১টি সিসি ক্যামেরা স্থাপন করে সার্বক্ষণিক মনিটরিং এর মাধ্যমে পাটুরিয়া ও আরিচাঘাটে সুষ্ঠু ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণসহ জেলার সকল আইন-শৃঙ্খলা সুষ্ঠুভাবে পরিচালিত হচ্ছে।
   


(সিসি ক্যামেরা, পুলিশ কন্ট্রোলরুম, মানিকগঞ্জ)

খ). ৮মার্চ/২০২০ খ্রিঃ বাংলাদেশে প্রথম করোনা শনাক্ত হওয়ার পরপরই মানিকগঞ্জ জেলায় ঢাকা আরিচা হাইওয়েসহ সিংগাইর থানাধীন ধল্লা ব্রীজে চেকপোস্ট বসিয়ে বাহিরাগতদের গমনাগমন বন্ধ এবং বিদেশ ফেরতদের হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করা হয়। বিনামূল্যে মাস্ক, হ্যান্ড গ্ল্যাভ্স ও স্যানিটাইজার বিতরণ, জীবানুনাশক ছিটানো, সচেতনতামূলক লিফলেটসহ প্রচার প্রচারণা, অসহায় মানুষের মাঝে এবং বন্যায় প্লাবিত বিভিন্ন চর এলাকায় ত্রান পৌঁছানো হয়। পবিত্র রমজান মাসে মানিকগঞ্জ শহরে অসহায় মানুষদের মাঝে সেহরী বিতরণের মধ্য দিয়ে বিশেষ কৃতিত্ব রেখেছে মানিকগঞ্জ জেলা পুলিশ। জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে সাংবাদিক, ডাক্তার ও নার্সদের পিপিই বিতরণ করা হয়। জেলা পুলিশ সদস্যসহ বিভিন্ন বাজারে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার ছিল জেলা পুলিশের মানবিক দায়িত্ববোধ। অদ্যবধি মানিকগঞ্জ জেলার মোট জনসাধারণ আক্রান্ত হয়েছে ১,৬৬৪ জন, সুস্থ হয়েছে-১,৫৭৯ জন, মৃত্যু বরন করেছে-২০ জন। করোনার ঝুঁকি নিয়েও জনগণদের সেবা দিতে গিয়ে মানিকগঞ্জ জেলায় এ পর্যন্ত মোট ৪৬ জন পুলিশ সদস্য আক্রান্ত হয়েছে এবং ১ জন বীর পুলিশ সদস্য জীবন উৎসর্গ করেছেন।

ইউনিটে চাকরিরত সদস্যদের আত্মদানের সংক্ষিপ্ত বিবরণঃ 

ক) কনস্টেবল শাহীনুর এর আত্মদান-
১৯এপ্রিল/২০১৮ খ্রিঃ সাজা প্রাপ্ত আসামী মোঃ আঃ সালাম মানিকগঞ্জ থানার অন্তর্গত গিলন্ড মধ্যপাড়া সাকিনস্থ কালীগঙ্গা নদীর পাড়ে কাঠ বাগানে অবস্থান করছিলো। কর্তব্যরত পুলিশ অফিসার ও কনস্টেবল শাহীনুর আসামীকে ধৃত করতে উক্ত স্থানে উপস্থিত হলে আসামী পাশ^বর্তী কালীগঙ্গা নদীতে ঝাঁপ দেয়। কনস্টেবল শাহীনুরও আসামীকে ধৃত করার জন্য আসামীর সাথেই নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়ে। কিন্তু নদীতে কচুরীপানা থাকায় কনস্টেবল শাহীনুর নদীতে নিখোঁজ হয়ে যায়। অনেক খোঁজাখুজির পর ২০এপ্রিল/২০১৮ খ্রিঃ বেলা ১৩.১৫ ঘটিকার সময় জয়নগর সাকিনস্থ কালীগঙ্গা নদী হতে কনস্টেবল শাহীনুর এর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এভাবেই শহীদ কনস্টেবল নিজের জীবন উৎস্বর্গ করে মানিকগঞ্জ জেলা পুলিশের আত্মত্যাগের কাহিনী রচিত করে চিরস্মরণীয় হন।

খ) কনস্টেবল আতিয়ার রহমান এর আত্মদান-
বাংলাদেশে প্রথম কোভিড-১৯ শনাক্ত হলে বীর শহীদ কনস্টেবল/৩০৫ মোঃ আতিয়ার রহমান মানিকগঞ্জ জেলার পুলিশ কন্ট্রোলরুমে দিনরাত কর্তব্য পালনে অবিচল ছিলেন। সার্বক্ষণিক জেলার বিভিন্ন স্থানের আইন-শৃঙ্খলাসহ কোভিড-১৯ এর রিপোর্ট সংগ্রহ করাই ছিল কনস্টেবল আতিয়ার রহমান এর মানবিক দায়িত্ববোধ। কিন্তু নিজেই গত ২৭/০৬/২০২০ খ্রিঃ কোভিড-১৯ পজিটিভ হয়ে বীর শহীদ কনস্টেবল/৩০৫ মোঃ আতিয়ার রহমান নিজের জীবন উৎস্বর্গ করে মানিকগঞ্জ জেলা পুলিশের আত্মত্যাগের কাহিনী রচিত করে চিরস্মরণীয় হন।

 
Copyright © 2021 Superintendent of police, Manikgonj. Developed by Momtaj Trading(Pvt.) Ltd.